কেউ কেউ দাবি করেছেন যে টেবিল লবণের চেয়ে হিমালয়ের লবণ বেশি প্রাকৃতিক। এই দাবির যোগ্যতা রয়েছে বলে মনে হয়।

ক্লাবিং প্রতিরোধের জন্য সোডিয়াম অ্যালুমিনোসিলিকেট বা ম্যাগনেসিয়াম কার্বনেট, যেমন টেবিল লবণ সাধারণত প্রচুর পরিশ্রুত হয় এবং অ্যান্টি-কেকিং এজেন্টগুলির সাথে মিশ্রিত হয়,

হিমালয়ের লবণ কম কৃত্রিম এবং এটিতে সাধারণত অ্যাডিটিভ থাকে না।

নারিকেল তেলের ব্যবহারের কথা উঠলেই শুধু মনে হয় চুল ছাড়া এই তেলের ব্যবহার আর নেই। তবে দিন দিন অবশ্য গবেষণায় উঠে আসছে নারিকেল তেলের বিবিধ ব্যবহার। যা শরীর ত্বক সবজায়গাতেই বেশ উপকার দেয়। অনেক সমস্যার সমাধান মেলে এই নারিকেল তেলের ব্যবহারে। অনেকের হয়তো অনেক বিষয় জানা নেই। যাদের বিষয়গুলো জানা নেই তারা জেনে নিন।

সরিষাবীজ থেকে তৈরি হয় সরিষার তেল। এটি গাঢ় হলুদ বর্ণের এবং বাদামের মতো সামান্য কটু স্বাদ ও শক্তিশালী সুবাসযুক্ত তেল। ওমেগা আলফা ৩ ও ওমেগা আলফা ৬ ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন ই ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের সমৃদ্ধ উৎস হওয়ায় সরিষার তেলকে স্বাস্থ্যকর তেল বলা হয়।

0

TOP

X
Change